পবিত্রতা-ঈমানের-অঙ্গ

Share this

হাদীছ শরীফে পাক পবিত্রতাকে ঈমানের অর্ধেক বলা হয়েছে।নামাজের জন্য তা অত্যাবশীয় শর্ত।

নামাজের মাসআলা মাসায়েল জানার পূর্বে পাক পবিত্রতার মাসায়েলগুলো জানা অত্যন্ত জরুরী।

ইমাম গাজ্জালী রহ. এ পাক পবিত্রতাকে চারটি পর্যায়ে বিভক্ত করেছেন।

১। শরীরের বাহ্যিক দিক অপবিত্রতা ও ময়লা আবর্জনা হতে পবিত্রকরণ।

২। অঙ্গ প্রত্যঙ্গগুলোকে পাপ ওনাহ এবং অপরাধ হতে পবিত্র করা।

৩। খারাপ ও ঘৃন্য চারিত্র হতে অন্তরকে পাক করা।

৪। আল্লাহ ব্যতীত অন্য সবকিছু হতে মন অন্তর হৃদয়কে পবিত্র করা।

পাক পবিত্রতা

এটাই হল নবী রাসূল এবং ছিদ্দীকগণের পাক পবিত্রতার মূল কথা। উল্লেখিত এ চারটি পর্যায়ে নিজেজে অতটুকু পাক পবিত্র করে তোলা প্রয়োজন,

যতটুকু পাক হলে নিজে নিজেকে পবিত্র পবিত্র বলে মনে করতে পারে।

এ জন্যে পাক পবিত্রতা বিষয়ের উপর ন্যূনতম জ্ঞানও অর্জন না করলে একজন মুসলমান তার ঈমানের অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌছা সম্ভব হয় না।

এ বিষয়ে জ্ঞান অর্জনের জন্য আরবী এবং উদূ ভাষায় প্রচুর বই কিতাব বিদ্যমান। আমরা যারা বাংলা ভাষায় কথা বলি তাদের মধ্যে যারা আরবি এবং

উদূ ভাষা না বুঝেন তাহলে বর্তমানে বাংলা ভাষায়ও অনেক বই পাওয়া যায়। তাই অন্তত বাংলা ভাষায় আলোচনা করা হয়েছে এমন কয়েকটি বই পড়া।

আরো পড়ুন: নফল নামাজের নিয়ত

Leave a Reply

Your email address will not be published.