নামাজে যে সব কাজ মাকরূহ

Share this

নামাজের মধ্যে যে সকল কাজ করা মাকরূহ

  • প্রচলিত নিয়েমের খেলাপ কাপড় পরিধান করা। যেমন মাথা অথবা কাধের উপর কাপড় রেখে দুধারে সোজা ঝুলিয়ে দেয়।
  • এমন মামুলি পোশাক পরিধান করে নামাজ পড়া যা পরিধান করে লোক হাটে-বাজারে, কোন সভা-সমিতিতে যাওয়া পছন্দদ করে না।
  • যেমন কেউ তালপাতার টুটি দিয়ে নামাজ পড়ে অথবা এমন কোন রুমাল মাথায় দেয় যা স্বাভাবিক অবস্থায় মাথায় দেয় না বা শুধু গেঞ্জি পরে কিংবা এমন জামা পরে নামাজ পড়ে বা পরিধান করে সাধারণত বাহিরে বের হয় না।
  • বিনা ওজরে খালি মাথায় নামাজ পড়া।
  • ধুলাবালি থেকে কাপড়কে বাচানোর জন্য গুটিয়ে রাখা।
  • নামাজরত অবস্থায় পরনের কাপড়, দাড়ি, মাথায় চুল অথবা অন্য কিছু নাড়াচাড়া করা কিংবা খেলা করা।
  • নামাজে আঙ্গুল ফোটানো।
  • পাথরকুচি বা ধুলা সারানোর জন্য বার বার ফুক দেয় কিংবা হাত ব্যবহার করা।
  • বিনা অজুহাতে কুকুরের বসার ন্যায় বসা।
  • সিজদার সময় পুরুষদের দুহাত কুনুই পর্যন্ত মাটিতে বিছানো ।
  • প্রথম কাতারে জায়গা থাকা অবস্থাও পেছনে একাকী দাড়ান।
  • ছবিযুক্ত কাপড় পরে নামাজ পড়া।
  • এমন জায়গায় নামাজ পড়া যেখানে সিজদার জায়গায়, মাথার উপরে কিংবা ডানে বামে জীব জন্তুর ছবি থাকে।
  • মুখে হাই আসলে বন্ধ না করা অথবা ইচ্চা করে হাই তোলা।
  • এমন লোকের দিকে মুখ করে নামাজ পড়া যে নামাযীর দিকে মুখ করে আছে।
  • ইমামের মেহরাবের বিককুল ভেতরে দাড়ানো। পা মেহরাবের বাহিরে থাকলে এবং সিজদা প্রভৃতি ভেতরে হলে দোষ নেই।
  • চোখ বন্ধ করে নামাজ পড়া। তবে মন স্থির করার জন্য সাময়িক চোখ বন্ধ করলে নামাজ মাকরূহ হবে না।
  • শুধু কপাল অথবা শুধু নাজ মাটিতে ঠেকিয়ে সিজদা করা কিংবা টুপির কেনার বা পাগড়ি প্যাচের উপর সিজদা করা।
  • নামাজের কোন সুন্নাত বাদ দেওয়া।
  • সিজদার সময় দুপা মাটি থেকে উঠানো ।
  • মুখে কিছু রেখে নামাজ পড়া যাতে ক্বিরাত পড়তে অসুবিধা হয়।
  • ফরজ নামাজে কুরআনের ক্রমিক ধারা বজায় না রেখে কিরাত পড়া।

কোরআন শরীফের শুরুর দিক থেকে প্রথম রাকাতে কোন সূরা বা কয়েক আয়াত পাঠ করে পরবর্তী রাকাতে কয়েক আয়াত বাদ দিয়ে বা ছোট একটি সূরা বাদ দিয়ে পড়া।

আরো পড়ুন

একাকি নামাজ পড়ার নিয়ম

Leave a Reply

Your email address will not be published.